মেনু নির্বাচন করুন

শিরোনাম
আর. এম. শাখা
বিস্তারিত

জেলাপ্রশাসনেরআরএমশাখাটিঅতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) এর তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়। শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার, আর. এম, লক্ষ্মীপুর। ইহা কালেক্টরেট ভবনের ৩য় তলায় ৬নং কক্ষে অবস্থিত।


নাগরিক সেবা

ক্রঃনং

সেবারনাম

সেবাপ্রদানেরপদ্ধতি

সেবাপ্রদানেরসময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০১

সরকার পক্ষে দেওয়ানী মামলা রুজ্জুও পরিচালনা সংক্রান্ত বিষয়াদি।

সরকারীজমাজমিসংক্রান্তেসরকারকেবিবাদীকরে/ সরকারবাদীহয়েদেওয়ানীআদালতেদায়েরকৃতমোকদ্দমায়সরকারপক্ষেবিজ্ঞজিপিরমাধ্যমেপ্রতিদ্বন্দ্বিতাপূবর্কসরকারীস্বার্থতথাজনস্বার্থসংরক্ষণকরাহয়।

বিজ্ঞ দেওয়ানী আদালতের কাযর্প্রণালী/ বিধিবিধান মোতাবেক।

যথাসাধ্য চেষ্টার পরও যদি কোন মোকদ্দমায় সরকরের বিপক্ষে রায় হয় তাহলে আপীল/ রিভিশনের ব্যবস্থা গ্রহণকরা হয়।

০২

দেওয়ানী মামলার এস.এফ তৈরী ও প্রেরণ বিষয়।

 

দেওয়ানী আদালত হতে সমন ও আর্জি প্রাপ্তির পর এস. এফ (ঘটনা বিবরণী) চেয়েসংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর পত্র প্রেরণ করা হয়।এস.এফপ্রাপ্তির পর বিজ্ঞ সরকারী কৌশুলীর নিকট প্রেরণ করা হয়।

যত দ্রুত সম্ভব।

 

বিজ্ঞ আদালতে সময়ের আবেদন করতে হয়।

 

০৩

দেওয়ানী আপীল দায়ের বিষয়।

 

কোন দেওয়ানী মোকদ্দমায় সরকরের বিপক্ষে রায় হলে সাথে সাথে রায় ডিক্রিরজাবেদা নকল উত্তোলনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।নকল পাওয়া মাত্র বিজ্ঞ জিপিরমাধ্যমে আপীল করা হয়।

মূল মোকদ্দমায় রায়/ডিক্রিতারিখ হতে ৩০ দিনের মধ্যে।তবে জাবেদা নকল প্রাপ্তিসাপেক্ষ্যে।

তামাদি মওকুফের আবেদন করতে হয়।

 

০৪

জিপি/এজিপি নিয়োগ পদ্ধতি ও ভাতা প্রদান বিষয়।

বিজ্ঞ জিপি/ এজিপিগনের নিয়োগ আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়েরসলিসিটর উইং হতে প্রদান করা হয়।জিপি/এজিপিগনের ভাতা আর.এম শাখা হতে বিধিমোতাবেক প্রদান করা হয়।

বিজ্ঞ জিপি/ এজিপিগনের আবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে গ্রহনযোগ্য সময়ের মধ্যে।

আবেদন বিধি মোতাবেক পাওয়া গেলে ভাতা প্রদানে ব্যর্থতার অবকাশ নেই।

 

০৫

অবমূল্যায়িত দলিলের মামলা নিস্পত্তি কাযর্ক্রম।

 

সাব-রেজিষ্ট্রার অফিস হতে পত্র পাওয়ার পর কে‌ইস নথি সৃজন পূবর্ক দলিলগ্রহীতা বরাবর নোটিশ প্রদান করা হয়।উপযুক্তশুনানী অন্তে কাগজ-পত্র দৃষ্টে আদেশ প্রদান কর হয়।দলিল গ্রহীতা ঘাটতিরাজস্ব জমা প্রদান করলে মামলা নিস্পত্তি হয়।ঘাটতি রাজস্ব প্রদান না করলেরাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যে জেনারেল সার্টিফিকেট মামলা রুজুর ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

আদালতের  সন্তুষ্টি সাপেক্ষ্যে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব।

 

জেনারেল সার্টিফিকেট কেসের মাধ্যমে টাকা আদায় করা হয়ে থাকে।

 

০৬

স্ট্যাম্প ভেন্ডার লাইসেন্স প্রদান, নবায়ন ও বাতিলকরণ।

 

ক) আনুসাঙ্গিক কাগজপত্রাদী সহ জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করতে হয়।আবেদনপ্রাপ্তির পর পুলিশ সুপার, লক্ষ্মীপুর, সংশ্লিষ্ট উপজেলানিবার্হীঅফিসার-এরনিকট হইতে যাচাই প্রতিবেদন প্রাপ্তির পরষ্ট্যাম্প ভেন্ডার লাইসেন্স প্রদান করা হয়।

 খ) প্রতি বছর ৩১শে ডিসেম্বরএর মধ্যে নির্ধারিত খাতে সরকারী লাইসেন্স ফি জমাদিয়ে মূল লাইসেন্স সহ ১০/- টাকার কোর্টফি সম্বলিত ষ্ট্যাম্প ভেন্ডারলাইসেন্স নবায়নের আবেদনকরতেহয়(পরবর্তী বছরের জন্য)।

গ) লাইসেন্স নবায়নের দরখাস্ত প্রাপ্তির পর তা যাচাই বাছাইএরজন্যট্রেজারীঅফিসারএরনিকটপ্রেরণকরাহয়।সঠিক পাওয়া গেলে পরবর্তী বছরের জন্য লাইসেন্স নবায়ন করা হয়।

ঘ) ষ্ট্যাম্প এ্যাক্ট-এর ১৮৯৯ বিধি মোতাবেক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

কাগজপত্র সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য যুক্তি সংগত সময়।

 

 

কাগজপত্র সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য যুক্তি সংগত সময়।

 

 

 

 

জেলা প্রশাসক মহোদয়েরঅনুমোদনেরপরসহকারী কমিশনার (আর.এম),লক্ষ্মীপুরলাইসেন্সনবায়ন করতে পারেন।

 


চলতি প্রকল্পসমূহ

0


কার্যক্রম

 

১।  সরকারীপক্ষেদেওয়ানীমামলাপরিচালনা।

২।  ভেন্ডারশীপলাইসেন্সপ্রদান।

      ৩।  আমমোক্তারনামরিস্ট্যাম্পিং।

      ৪।  স্ট্যাম্পঅবমূল্যায়নমামলা।


যোগাযোগ
০৩৮১-৬২২৫০ মোবাইল- 01738291578
ছবি
www.lakshmipur.gov.bd/dcoffice_section/:uploadpath/Rev.PNG
কর্মচারীবৃন্দ
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা